Header ad

পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ নায়িকা সিমলাকে

বাংলাদেশ বিমানের দুবাইগামী ময়ুরপঙ্খী ফ্লাইট ‘ছিনতাই চেষ্টার’ ঘটনায় নিহত পলাশ আহমেদের কথিত স্ত্রী চিত্রনায়িকা সামসুন নাহার সিমলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে বলে জানা গেছে।

চিত্রনায়িকা সামসুন নাহার শিমলা বর্তমানে ছবির সুটিং এ ভারতের মুম্বাইয়ে অবস্থান করছেন।

বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়া সাংবাদিকদের এমন তথ্য জানান।

রাজেশ বড়ুয়া জানান, তদন্তের প্রয়োজনে যাকে যাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা দরকার, বা যেখানে যাওয়া প্রয়োজন, সেখানে যাওয়া হবে এবং নিহত পলাশের স্ত্রী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের প্রয়োজনে ডাকা হবে।

এদিকে কথিত ছিনতাইয়ের চেষ্টার ঘটনার ৪ দিন পর বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-১৪৭ নম্বর ময়ুরপঙ্খী ফ্লাইটটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক উইং কমান্ডার এবিএম সরওয়ার-ই-জামান।  ছিনতাইয়ের চেষ্টা হওয়া বিমানটি ঘটনার পর এখানেই ছিল।  বুধবার রাতে সেটি ঢাকার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম ছেড়ে গেছে।

মামলার পর আলামত এবং প্রাথমিক তদন্তের জন্য বিমানটি চারদিন চট্টগ্রাম এয়ারপোর্টে ছিল।

এদিকে, সিভিল এভিয়েশনের কাছ থেকে গতরাতে প্রায় ১৫টি আলামত গ্রহণ করেন তদন্ত কর্মকর্তা। এর মধ্যে খেলনা পিস্তল, ডামি বোমা, নিহত পলাশের পাসপোর্ট ও বিয়ের কাবিননামাসহ বিভিন্ন জিনিস রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত রবিবার ঢাকা শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে চট্টগ্রাম হয়ে দুবাই যাওয়ার পথে উড়ন্ত অবস্থায় বাংলাদেশ বিমানের বিজি-১৪৭ নম্বর ময়ুরপঙ্খী ফ্লাইটটি কথিত ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে জরুরীভাবে অবতরণ করে। পরে যাত্রীরা নেমে গেলে সেনা বহিনীর নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর অভিযানে কথিত ছিনতাইকারী এবং চিত্রনায়িকার স্বামী পলাশ আহমেদ নিহত হয়।

ঘটনার পর মিডিয়ার মুখোমুখি হয়ে নায়িকা সিমলা বলেছেন, ‘দেশের স্বার্থের জন্য আমাকে যদি কোনো প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় তাহলে আমি তৈরি আছি, নো প্রবলেম, আমি ক্লিয়ার। এখানে আমার কোনো কিছু ঢাকার নাই’।

গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে সিমলা বলেন, পলাশের সাথে আমার বিয়ে হয়েছিল গত বছরের ১৮ মার্চ। তার সাথে আমার পরিচয় হয় ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তে। ‘নাইয়োর’ সিনেমার পরিচালক রাসেদ পলাশের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে।

কথা প্রসঙ্গে সিমলা জানান, আমি পলাশ মাহমুদকে মূলত একজন সিনেমা প্রযোজক হিসেবেই চিনি।

সিমলা আরও বলেন, আমাদের ডিভোর্স হয়ে গেছে চার মাস আগে গত বছর নভেম্বর মাসের ৬ তারিখে।

‘সমস্যা ছিল বলেই তো ডিভোর্স দিয়েছি, তবে মানসিক সমস্যাটা একটি মূল কারণ’ যোগ করেন এই চিত্র নায়িকা। তিনি আরও বলেন, পুরো ঘটনাটা আমি শুনেছি। চার মাস আগে আমি তাকে ডিভোর্স দিয়েছি। এখন আমার কি করা উচিত?

পলাশের এহেন কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে সব কিছুই তিনি জানেন এমনটাই বলেন সিমলা। তিনি বলেন, এ্যাবনর্মাল হয়ে পলাশ যেই কাজটাই করুক না কেনো এটা দেশের জন্যে ক্ষতিকর।-

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *