Header ad

সিগারেটেই হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি!

ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। এসব কিছু জানার পরও সারা বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ ধূমপান করেন। প্যাকেটের পর প্যাকেট নিমিষে ধোঁয়া করে বাতাসে উড়িয়ে দেন। শরীর স্বাস্থ্যের কতটা ক্ষতি হচ্ছে, সেটা একবার ভেবেও দেখেন না। ওয়ার্ল্ড হেল্থ অর্গানাইজেশনের এক সমীক্ষার বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, প্রত্যেক বছর সাত মিলিয়ন মানুষের প্রাণ কেড়ে নেয় তামাক। তাছাড়া, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের কারণে মৃত্যু হয় ২০ লাখ মানুষের।

সম্প্রতি একটি গবেষণায় উঠে এসেছে, দিনে ১০টা কিংবা ২০টা নয়, হার্ট অ্যাটাক হতে পারে দিনে একটা মাত্র সিগারেট খেলেই। ইউনিভার্সিটি কলেজ অব লন্ডনের ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক অ্যালান হ্যাকশের নেতৃত্বে একদল গবেষক ওই গবেষণা করেন। ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের অধ্যাপক অ্যালান হ্যাকশ এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা মনে করি, সারাদিনে বুঝি প্রচুর সিগারেট খেলে তবেই হূদরোগের ঝুঁকি বাড়বে। আসলে তা নয়। ২০টা খেতে হবে না। যদি কোনো ব্যক্তি সারাদিনে ১টা মাত্র সিগারেটও খান, তাহলেও তার মধ্যে হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। অর্থাৎ সেই ব্যক্তির মধ্যে হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক এবং ফুসফুসের ক্যান্সারের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

অধ্যাপক হ্যাকস আরো বলেন, কিছু দেশে অতিরিক্ত ধূমপায়ীদের মধ্যে ধূমপানের মাত্রা কমানোর একটি প্রবণতা দেখা যাচ্ছে, তারা মনে করছেন এতে তাদের ঝুঁকি কমছে। কিন্তু এটা ক্যান্সারের ক্ষেত্রে কিছুটা সত্যি হলেও হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের ক্ষেত্রে সত্যি নয়।

অধ্যাপক হ্যাকশের মতে, ক্যান্সারের চেয়ে হৃদরোগের বা স্ট্রোকের ক্ষেত্রে ধূমপান অনেক বেশি ঝুঁকি তৈরি করে। ‘ধূমপান একবারে ছেড়ে দিতে হবে।’ তবে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পল এ ভিয়ার্ড বলেছেন, ধূমপান কমিয়ে দিয়ে কোনো লাভ নেই, সেটা ঠিক নয়। তিনি বলেন, ধূমপান ধীরে ধীরে কমিয়ে বর্জন করা সহজ হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, যুক্তরাজ্যে সামগ্রিকভাবে ধূমপায়ীর সংখ্যা কমছে ঠিকই কিন্তু দিনে একটি থেকে পাঁচটি সিগারেট খায়, এমন মানুষের সংখ্যা আনুপাতিক হারে বাড়ছে। দিনে অন্তত ২০টি সিগারেট খান, এ রকম ১০০ ধূমপায়ীর ওপর গবেষণায় দেখা গেছে, তাদের সাতজনই হয় হার্ট অ্যাটাক, না হয় স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *