Header ad

স্ট্রেচমার্ক দূর করুন ঘরোয়া উপায়ে

ত্বকে ফাটা ফাটা বা কুঁচকে যাওয়ার মতো দাগকে আমরা স্ট্রেচমার্ক বলে থাকি। গর্ভধারণ, অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধি, অতিরিক্ত ওজন কমানো, হরমোনের অসামঞ্জস্যতা, ইত্যাদি কারণে স্ট্রেচমার্ক পড়তে পারে। সাধারণত কোমর, ঘাড়ের ভাঁজে, পেটের ভাঁজে অথবা পায়ের ভাঁজে এই ধরনের দাগ দেখা দেয়। আবার গর্ভকালীন পেটে এই স্ট্রেচ মার্ক দেখা দেয়।

সাধারণত স্ট্রেচমার্কের সমস্যাকে আমরা তেমন গুরুত্ব দিতে চাই না। কিন্তু এই দাগের বাড়াবাড়ি ত্বকেরও ক্ষতি করে। তাই বেশি স্ট্রেচমার্ক দেখা দিলে অবশ্যই ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

তবে স্ট্রেচমার্ক অল্প থাকলে তা কিছু ঘরোয়া উপায়েই মোকাবিলা করা যায়। বাজারচলতি নানা ক্রিমে স্ট্রেচমার্ক দূর করা গেলেও বিভিন্ন রাসায়নিকযুক্ত সেসব ক্রিমের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও কম নয়। তাই কিছু বিশেষ ঘরোয়া উপায়ে এটি দূর করলে ত্বকের কোনও ক্ষতি হয় না।

ডিমের সাদা অংশ: কুসুম বাদে ডিমের সাদা অংশ ভালো করে ফেটিয়ে নিন। এবার তা স্ট্রেচমার্কের উপর মাখিয়ে রাখুন। পনেরো মিনিট রাখার পর তা গরম পানিতে ধুয়ে নিন। এরপর অ্যালোভেরা জেল লাগিয়ে রাখুন সেই জায়গায়। ধীরে ধীরে হালকা হয়ে দাগ মিলিয়ে যাবে।

আলুর রস: ত্বকের যেকোনও সমস্যার জন্য আলুর রস খুব উপযোগী। স্ট্রেচমার্কের উপর আলুর রস মাখিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে নিন। এভাবে কয়েক সপ্তাহ যত্ন নিলেই স্ট্রেচমার্কের দাগ উঠে যাবে।

হলুদ ও সরষের তেল: হলুদ ও সরষের তেল একসঙ্গে মিশিয়ে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরি করুন। তারপর তা স্ট্রেচমার্কের উপর লাগিয়ে রাখুন। সপ্তাহে বার তিনেক এটি লাগালে স্ট্রেচমার্কের দাগ একসময় মিলিয়ে যায়।

লেবু ও চিনি: লেবু টুকরো করে কেটে তার উপর চিনি যোগ করুন। এবার চিনিসহ লেবুটিকে স্ট্রেচমার্কের উপর ঘষতে থাকুন। চিনি গলে গেলে ভালো করে ধুয়ে নিন। এই প্রক্রিয়াটি সপ্তাহে বার চারেক করতে পারলে হালকা হয়ে উঠে যাবে স্ট্রেচমার্ক।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *