Header ad

সিনেমার রক্তের ‘রেসিপি’

চলচ্চিত্রের খলনায়ককে যেমন মার খেতে হয় নায়কের হাতে, তেমনি নায়কও মাঝেমধ্যে হন রক্তাক্ত। ছবির অন্য চরিত্রদের মুখ ও শরীর দিয়ে রক্ত ঝরে পড়ার দৃশ্যও বিরল নয় বড় পর্দায়। অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগতে পারে, এসব জখমের রক্ত কি আসল, না নকল? ঢাকাই ছবিতে রক্ত হিসেবে যে তরল ব্যবহার করা হয় সেটি আসলে আদৌ সত্যিকারের রক্ত নয়। কয়েকটি জিনিসের মিশ্রণে এই কৃত্রিম রক্ত তৈরি করা হয়। আর কী সেই উপাদান? চলুন জানা যাক চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট মানুষের মুখ থেকেই।

চলচ্চিত্র পরিচালক বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘রক্ত আমাদের সব ছবিতেই কমবেশি ব্যবহার হয়ে থাকে। বিশেষ করে মূলধারার চলচ্চিত্রে রক্তের ব্যবহার হয় বেশি। অভিনয়শিল্পীদের কথা ভেবে আমরা সবসময় স্বাস্থ্যসম্মত জিনিস দিয়ে রক্ত তৈরি করি, যেন শিল্পীর কোনও সমস্যা না হয়।’

রক্ত তৈরির স্বাস্থ্যসম্মত উপাদান কী? একটু পরই সেটা জানা যাবে, এর আগে জানা যাক ঢাকাই ছবির অন্যতম খল অভিনেতা মিশা সওদাগর কী বলেন এই রক্ত নিয়ে। তিনি বলেন, ‘আমরা মারামারির সময় রক্ত ব্যবহার করি। রক্ত মুখে গেলে যেন সমস্যা না হয়, সেটা মাথায় রেখেই সিনেমার রক্ত বানানো হয়। কারণ অনেক সময় দেখা যায় মুখ দিয়ে তরল রক্ত বের হচ্ছে। তখন অবশ্যই কিছু না কিছু রক্ত মুখের ভেতরে যায়। আমার এমন অনেকবার হয়েছে, রক্ত মুখের ভেতর চলে গেছে। আর কাজ করার সময় মুখে গেল কি না, সেটা খেয়াল রাখা যায় না। তাই আমরা যে রক্তটা ব্যবহার করি— সেটা শরীরের জন্য ক্ষতিকর কিছু নয়।’

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *