Header ad

সিনেমা অঙ্গনে বহু ‘ইয়েস ম্যাম’ আছে!

আইটেম গান দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু করেছিলেন আবেদনময়ী সানি লিওন। ধীরে ধীরে ‘জিসম টু’র মতো ফিচার ফিল্মে নিজের জায়গা করে নেন এ অভিনেত্রী। আর পুরোনো দিনগুলোতে তাঁর পর্নো ছবির ইতিহাস বহুল চর্চিত।

চলচ্চিত্রশিল্পে পা রাখার পর ইন্ডাস্ট্রির বহু বদ্ধমূল ধারণা ভাঙার চেষ্টা করেছেন সানি লিওন। এখনো সেই চেষ্টা জারি রেখেছেন। কখনো সফল, আবার কখনো ব্যর্থ হয়েছেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে হিন্দি চলচ্চিত্র অঙ্গনে তাঁর অভিজ্ঞতার কথা জানালেন সানি।

সানি লিওন বলেন, “আমাকে গাইড করার মতো বেশি লোক ছিল না। যেটা দেখেছি, ইন্ডাস্ট্রিতে বহু জায়গায় ‘ইয়েস ম্যাম’ বলে যেতে হয়। প্রথমে সবাই বলে দারুণ সুযোগ পেয়েছ। কিন্তু তারপর, কাজটা না হলে বলে, ‘আগেই তো বলেছিলাম এটা কোরো না বা ভুল ছিল।’ এখানে অনেক বেশি এসব কাজকারবার হয়।”

সানি লিওন আরো বলেন, ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকা খুব কঠিন, যদি না নামের পাশে পরিচিত পদবি থাকে। বলিউডে তারকা-সন্তানদের জয়জয়কার। স্বজনপ্রীতি নিয়ে নানা বিতর্ক। সেই ইঙ্গিতই দিলেন সানি।

‘যা কিছুই করেছি, সেসব থেকে শিখেছি অনেক। এবং যে রুচিবোধ তৈরি হয়েছে আমার, এই ক্যারিয়ার নিয়ে আমি সত্যিই সুখী। আামি নন-স্টপ কাজ করে চলেছি। সারা বছর আমি বুকড থাকি, যেমনটা ছিলাম আগের বছরগুলোতে’, বলেন সানি।

জনপ্রিয় ও বিতর্কিত টিভি রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এর মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন সানি লিওন। তিনি ‘জিসম টু’, ‘রাগিনি এমএমএস টু’, ‘এক পেহেলি লীলা’, ‘কুছ কুছ লোচা হ্যায়’, ‘মাস্তিজাদি’, ‘তেরা ইন্তেজার’ ও নিজের জীবনীভিত্তিক ওয়েব সিরিজ ‘করণজিৎ কউর’-এ অভিনয় করেছেন।

সানিকে আগামীতে মালয়ালাম ভাষার সিনেমা ‘রঙ্গিলা’ ও তামিল পিরিয়ড ড্রামা ‘বীরমাদেবী’-তে দেখা যাবে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *