Header ad

সংসার সুখের হয় বোঝাপড়ার গুণে

ঘনিষ্ঠ এক বন্ধুর স্ত্রী একদিন না পারতে আমাকে বলেই ফেলল, ‘তোমার বৈবাহিক জীবনে কোনো সমস্যা হচ্ছে?’ আমি খুব অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলাম, ‘হঠাৎ এই কথা কেন?’বন্ধুপত্নীর সরল স্বীকারোক্তি, ‘তোমার ফেসবুক প্রোফাইলে শুধু তোমার ছবি কেন?’ এ কথা শুনে প্রথমে অনেক হেসেছি। তবে পরে ব্যাপারটা অবশ্য ভাবিয়েছে। ফেসবুক কতটা গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জীবনে, কতটা প্রভাব ফেলেছে আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাপনে?

ফেসবুক নামের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এখন অনেকটাই আমাদের অনলাইন ব্যক্তিসত্তা। বাস্তব জীবনের মতো সে জীবনের কথাও মাথায় রাখতে হয়। অনলাইনের ভার্চ্যুয়াল জীবনে একজনের আচরণ দেখে তার ‘আসল’ জীবন সম্পর্কে মানুষ ধারণা করে নিচ্ছে। স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের গভীরতা ফেসবুক প্রোফাইলের হাস্যোজ্জ্বল ফিল্টার দেওয়া প্রোফাইল পিকচার দিয়ে যাচাই করা খুবই কঠিন। আবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওয়েবসাইটগুলোই অনেক ক্ষেত্রে সম্পর্কের ভিত নষ্ট করে দিচ্ছে।

আরেকটা ঘটনার কথা বলি। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলাম, ‘সুন্দরী মেয়েদের ছবি দেওয়া ফেক (ভুয়া) প্রোফাইল থেকে আমাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে লাভ নেই, আমার বউ আমার ফেসবুকের পাসওয়ার্ড জানে।’

স্ট্যাটাসটা একেবারে মজা করেই দেওয়া। আর আমার পাসওয়ার্ড একেবারে সুরক্ষিত। কিন্তু অনেকেই আমাকে ইনবক্সে জানালেন, তাঁদের স্ত্রীও পাসওয়ার্ড জানে এবং তাঁদের অবর্তমানে চেক করে। এটা স্বামীদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। পারস্পরিক বিশ্বাস ফেসবুক পাসওয়ার্ড আর মেসেজ পড়ার মধ্যেই যেন সীমাবদ্ধ। তবে ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাইটগুলোর জন্য সম্পর্ক বেশি ভাঙছে, এটা আমি মানতে নারাজ।

যখন ইন্টারনেট ছিল না তখনো বিশ্বাস ভঙ্গের ঘটনা ঘটেছে, এর সঙ্গে মাধ্যমের সরাসরি কোনো প্রভাব নেই। সঙ্গীকে বিশ্বাস করলে নিঃশর্তভাবেই করা উচিত। এটি শুধু বিশ্বাস করা নয়, জীবনসঙ্গীকে সম্মান করাও। বলার অপেক্ষা রাখে না, স্বামী-স্ত্রী দুজনকেই এই বিশ্বাসকে শ্রদ্ধা করতে হবে এবং সচেতন থাকতে হবে। পাসওয়ার্ড জানার চেয়ে জরুরি নিজের সঙ্গীকে ভালোভাবে চেনা ও জানা!

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *