Header ad

আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবে ‘জয়তুন বিবির পালা’

রাজধানীর জাতীয় নাট্যশালায় আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবে শনিবার সন্ধ্যায় পরিবেশিত হয়েছে ‘জয়তুন বিবির পালা’। অন্বেষা থিয়েটারের এ পালাটি রচনা ও নির্দেশনা সায়িক সিদ্দিকী। ময়মনসিংহ গীতিকার ছায়া অবলম্বনে ভাগ্যবিড়ম্বিত রাজপুত্র গহরচান ও জয়তুন বিবির বিরহ গাঁথা বাংলাদেশের জনপ্রিয় পালা আঙ্গিকে মঞ্চায়ন করে অন্বেষা থিয়েটার।

এর আগে উৎসবের তৃতীয় দিন জাতীয় নাট্যশালার সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় ‘আন্তর্জাতিক, জাতীয় ও ব্রাত্যজনীন থিয়েটারের পারস্পরিক বিনিময়’ শীর্ষক সেমিনার। যেখানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আই. টি. আই বাংলাদেশ কেন্দ্র সহসভাপতি অধ্যাপক শফি আহমদ। তিনি ‘সাবঅল্টার্ন’ এর পরিভাষা হিসেবে ‘ব্রাত্যজন’ ব্যবহার করেন এবং বাংলাদেশের বর্তমান প্রযোজনা প্রবণতা ব্যাখ্যা করেন। ‘ব্রাত্যজন’ বলতে প্রান্তিক, ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী, লোক সংস্কৃতি, স্থানীয়, কমিউনিটি এবং গ্রামীন জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডকে বুঝিয়েছেন। মূল আলোচনার বিষয়ে সমকালীন আন্তর্জাতিক থিয়েটারের আটজন বিশেষজ্ঞ মতামত তুলে ধরেন। যদিও বক্তারা সংস্কৃতিকে কারও একার সম্পদ নয় বলেও মনে করেন। এমনকি সকল জ্ঞানেরও কোনো সীমানা বিভেদ নেই বলে উল্লেখ করেন। তবুও ব্রাত্যজনীন, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ধারণাও জরুরি-—এমনটাই অভিমত ছিল বক্তাদের।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *