Header ad

কেন এফডিসিতে পালিত হয় না হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ১৯ জুলাই। এ উপলক্ষে গাজীপুরের নুহাশপল্লীতে হুমায়ূন আহমেদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় কোরআন তিলাওয়াত ও দোয়া-দরুদ পড়া হয়। দুস্থ-এতিম বাচ্চাদের খাওয়ানো হয় সেখানে।

হুমায়ূন আহমেদের জন্মস্থান নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে মিলাদ ও দোয়া পড়ানো হয়। একই রকম আয়োজন থাকে তাঁর বাবার বাড়ি নেত্রকোনার কেন্দুয়ায়। হুমায়ূনভক্তরা সারা দেশে বিভিন্নভাবে পালন করেন এই বিশেষ দিনটি। তবে এফডিসিতে থাকে না কোনো আয়োজন। কেন এফডিসিতে পালিত হয় না হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী?

এ বিষয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘আমরা কোনো পরিচালকের জন্মদিন বা মৃত্যুবার্ষিকী এফডিসিতে পালন করি না। সেই হিসেবে হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকীতেও আমাদের কোনো আয়োজন নেই। কারণ, হুমায়ূন আহমেদের মতো আমাদের অনেক গুণী নির্মাতা প্রয়াত হয়েছেন। আমরা যদি সবার জন্মদিন বা মৃত্যুবার্ষিকী পালন করি, তবে সারা বছরই কোনো না কোনো পরিচালকের জন্ম বা মৃত্যুবার্ষিকী নিয়ে থাকতে হবে। তাই আমরা প্রতিবছর রোজায় একটি ইফতার পার্টি করে থাকি। সেদিন সকাল থেকে কোরআন খতম করি, পাশাপাশি প্রয়াত পরিচালকদের জন্য দোয়া পড়াই।’

খোকন আরো বলেন, ‘তবে আমাদের অনেক গুণী পরিচালক আছেন, যাঁদের সৃতি সংসদ রয়েছে, আবার অনেকেই পারিবারিকভাবে দিবস পালন করেন। তাঁদের কেউ যদি এফডিসিতে অনুষ্ঠান করে দিনটি পালন করতে চান, তবে আমরা পরিচালক সমিতি সার্বিক সহযোগিতায় থাকব। অনুষ্ঠান সার্থক করতে সব ধরনের সহযোগিতা করব আমরা।’

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *