Header ad

অভিনয় পছন্দ করিনি, গান গেয়েই আমার সুখ

সংগীতজগতে একটি বিস্ময়কর নাম লতা মঙ্গেশকর। সম্প্রতি জীবনের বর্ণময় ৯০ বছর পূর্ণ করেছেন উপমহাদেশের ‘নাইটিঙ্গেল’খ্যাত এ সংগীতশিল্পী। এমন কোন সুর, আবেগ বা অনুভূতি নেই যা তার সুমধুর কণ্ঠে গান হয়ে প্রকাশিত হয়নি। কর্মজীবনে ৭৭ বছর ধরে ৩৬টি ভাষায় অগণিত গান গেয়েছেন তিনি। অথচ অভিনয় দিয়েই শুরু হয়েছিল তার কর্মজীবন।

লতা মঙ্গেশকরের জীবন, কর্ম ও প্রেরণা নিয়ে মানুষের কৌতূহলও অনেক। জীবনের নয় দশক পেরিয়ে এখনও তিনি ভারতীয় সংগীতজগতে উজ্জ্বলতম নক্ষত্র হয়ে পথ দেখাচ্ছেন নবীনদের। সম্প্রতি ফিল্মফেয়ারে প্রকাশিত একটি সাক্ষাৎকারে তার সম্পর্কে জানা যায় নানা অজানা কথা। এরই চুম্বকাংশ বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

প্রথম জীবনের সংগ্রাম

১৯২৯ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেন লতা মঙ্গেশকর। মাত্র পাঁচ বছর বয়সেই গানের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে ওঠে তার। পরিবারের দুর্দশার কারণে কিশোরী বয়সেই তাকে রুটি রোজগারে নামতে হয়। লতা বলেন, ‘আমার বাবা (শিল্পী দীননাথ মঙ্গেশকর) ১৯৪২ সালের এপ্রিলে মারা যান। সে বছর অক্টোবরেই আমি কাজ শুরু করি। তখন আমার বয়স ১৩-১৪ বছর। সুতরাং আমাকে নায়ক বা নায়িকার ছোট বোনের চরিত্রে অভিনয় করতে হতো। কিন্তু অভিনয় করতে আমার ভালো লাগতো না। মেকআপ করা, নির্দেশ অনুযায়ী হাসা বা কাঁদা আমি উপভোগ করতাম না। গান গাইতেই আমার সবচেয়ে বেশি ভালো লাগতো।’

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *