Header ad

ঘুম কম হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে

স্বাভাবিক নিয়মে দিনে একজন মানুষের ৬ ঘণ্টা ঘুমানোর কথা থাকলেও বর্তমান সময়ে কিশোর-কিশোরীরা প্রতিদিন ৬ ঘণ্টার কম ঘুমিয়ে থাকে। এর প্রধান কারণ হলো অতিরিক্ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার।
বর্তমান সময়ের কিশোর-কিশোরীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই বেশি সময় পার করতে পছন্দ করে। এর প্রধান কারণ হলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে আমাদের প্রধান বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে বেছে নেয়া। এর ফলে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে দেখা দিচ্ছে বিভিন্ন মানসিক সমস্যা।
এক গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতি ৩ জনের মধ্যে ১জন দিনে ৫ ঘণ্টা বা তার চেয়ে বেশি সময় পার করে ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপের মতো বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যাবহারের মাধ্যমে।
মন বিশেষজ্ঞরা বলেন, ঘুমানোর ১ঘণ্টা আগে রুমের সব পর্দা বন্ধ করে দেয়া উচিৎ। যেন কোনভাবেই কোন আলোর কারণে ঘুম বিঘ্নিত না হয়। তবে বর্তমান সময়ে দেখা যায় আমরা সামাজিক মাধ্যমে এতোটাই নিজেকে ব্যস্ত করে ফেলি যে রুমের পর্দাটাই লাগাতে ভুলে যাই।
গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলছেন, রাত জেগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের অভ্যাস বেশি দেখা যায় ১৩ থেকে ১৫বছর বয়সী কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে।
আর একটি গবেষণায় দেখা যায়, কিশোর-কিশোরীদের সামাজিক মাধ্যমগুলো থেকে দূরে রাখা অনেকটাই চ্যালেঞ্জিং বিষয়। ৭০ভাগ কিশোর-কিশোরীরাই অতি সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের ফলে রাতে না ঘুমিয়ে তাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অথবা কর্মস্থলে ঘুমিয়ে থাকে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *