Header ad

ইন্ডাস্ট্রি আবার ঘুরে দাঁড়াবে

নতুন সম্ভাবনা ও স্বপ্ন নিয়ে শুরু হলো ২০২০ সাল। পুরোনো বছরের হিসেব চুকিয়ে শোবিজ অঙ্গনের মানুষও নিজেদের ঢেলে সাজাতে চাইছেন। মানসম্মত কাজ উপহার দিয়ে দর্শকের মন জয় করাই তাদের উদ্দেশ্য। এছাড়া সমাজের প্রতি দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রেও তারা বেশ তৎপর। চলুন পাঠক জেনে নেয়া যাক তারকাদের হালচাল।
আসিফ আকবর
দুর্দান্ত একটি বছর পার করলেন বাংলা গানের যুবরাজ আসিফ আকবর। ১০১ টি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। আর গান রিলিজ হয়েছে ৬৭টি। গেল বছরেই এই গানের মানুষ বড় পর্দায় নায়ক হিসেবে হাজির হয়েছেন। সৌজন্যে মিউজিক্যাল ফিল্ম গহীনের গান। তার গাওয়া ৯টি গান রয়েছে ছবিতে। দ্বিতীয় সপ্তাহে সারা দেশের ১৩টি সিনেমা হলে প্রদর্শিত হচ্ছে ছবিটি। নতুন বছরে সিনেমা হল সংখ্যা আরও বাড়বে বলে জানান আসিফ আকবর। তিনি বলেন, দেশে শীতের বেশ প্রকোপ দেখা দিয়েছে। সামনে শৈত্যপ্রবাহের আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। বিত্তবান মানুষদের অসহায় শীতার্তদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান রইলো। নতুন বছরে যেন মানুষ মানুষের জন্য-জীবন জীবনের জন্য গানটির যথার্থ প্রয়োগ সবাই করতে পারি। ভালোবাসা অবিরাম।
ইয়ামিন হক ববি
গেল বছরটি দারুণ কেটেছে ইয়ামিন হক ববির। দুই ঈদে নোলক এবং বেপরোয়া ছবি মুক্তি পেয়েছে। এর মধ্যে নোলক ছবিটি ব্যবসাসফল বলে দাবি বিজলিখ্যাত নায়িকার। এছাড়া প্রথমবারের মতো কলকাতার ছবিতে অভিষেক হয়েছে তার। তার রক্তমুখী নীলা ছবিটি পশ্চিমবঙ্গে টানা চার সপ্তাহ ধরে সিনেমা হলে প্রদর্শিত হচ্ছে। বাংলাদেশেও ছবিটি মুক্তি পরিকল্পনা করছে প্রযোজক। নতুন বছরে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি আবার ঘুরে দাঁড়াবে। সিনেমা হলের মান উন্নয়ন হবে। এ বছর বিগ বাজেটের ছবিতে কাজ করতে যাচ্ছেন। জানালেন ববি।
সাইমন সাদিক
আমার জন্য প্রাপ্তির বছর ছিল ২০১৯। জান্নাত ছবির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি। এই পুরস্কারটি একজন শিল্পীর জন্য স্বপ্নের মতো। নতুন বছরে আমার বেশ কিছু ছবি দর্শক পাবেন। কয়েকটি ছবির শুটিং শেষ পর্যায়ে। সুবিধা মতো সময়ে ছবিগুলো মুক্তি পাবে। নতুন বছরে আমাদের চলচ্চিত্রের কালো মেঘ কেটে যাক। চলচ্চিত্রের মানুষরা আমরা সবাই মিলে ইন্ডাস্ট্রির জন্য কাজ করে যাব।
বাপ্পি চৌধুরী
২০১৯ সালটি চলচ্চিত্রের জন্য একদমই ভালো যায়নি। আমি বিশ্বাস করি আঁধারের পরই আলো আসে। ২০২০ সালে আমাদের চলচ্চিত্রের সকল অন্ধকার কেটে যাবে। আর আমার ভক্তদের বলতে চাই। আপনাদের জন্য বিগ বাজেটের ভালো ভালো কাজ নিয়ে নতুন বছরে আসছি। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে যেমন সবাই পাশে থেকেছেন আগামীদিনেও আপনাদের সাপোর্ট আমার শক্তি হয়ে কাজ করবে।
সালহা খানম নাদিয়া
অনেক চড়াই উৎরাইয়ের মধ্যে দিয়ে নাটকের একটি বছর শেষ হলো। বিশেষ করে সিন্ডিকেট নিয়ে। তারপরেও আমার পছন্দের চ্যানেল আরটিভি আমার পাশে ছিল। আমি দেখেছি প্রায়ই আমার নাটক আরটিভিতে প্রচারিত হয়। গেল বছর আরটিভি স্টার অ্যাওয়ার্ড ২০১৯-এর ধারাবাহিক নাটক চিটিং মাস্টার’র জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর অ্যাওয়ার্ড পেয়েছি। আমি ভীষণ কৃতজ্ঞ। জুরি সদস্য এবং আমার দর্শক যারা আমাকে ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করেছেন। আমার ১২ বছরের ক্যারিয়ারে প্রথম অ্যাওয়ার্ড এটি। আর নতুন বছরের কথা বলতে গেলে আমি গ্লামার নয় চরিত্রের দিকে আরও বেশি গুরুত্ব দেবো। অভিনয়ের জায়গাটা আরও মজবুত করার চেষ্টা থাকবে। চলচ্চিত্রে কাজের প্রসঙ্গে নাদিয়া বলেন, আমার প্রিয় চ্যানেল আরটিভি এখন সিনেমাও প্রযোজনা করছে। তো তাদের সঙ্গে কাজের সুযোগ পেলে অবশ্যই করবো। সিনেমায় কাজের জন্য আগেও অফার পাচ্ছি। তবে সেক্ষেত্রে যদি ভালো গল্প পাই। দর্শক আমাকে সিনেমায় দেখতে পাবেন।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *