Header ad

আর থাকলো না গোপন, প্রকাশ্যে নায়ক সাইমনের স্ত্রী-দুই সন্তান

ঢাকাই ছবির নায়ক সাইমন সাদিক। ২০১২ সালে ‘জ্বি হুজুর’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে পদার্পন তার। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার পাওয়া এই অভিনেতার ‘গোপন’ সংসার জীবন সম্পর্কে জানেন না তার ভক্ত-অনুরাগীরা। নিজেও গোপন রাখতে চাননি আর তাই, গতকাল শনিবার বিকেলে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্টে স্ত্রী-সন্তানের ছবি দিয়ে ঘটা করেই জানিয়ে দিলেন বিষয়টি।

ফেসবুকে সাইমন লেখেন-

‘বাবা-মা।

পৃথিবীর সবচেয়ে অমুল্য রতন। যা কিনা অনেকের মতো আমিও ভাষায় প্রকাশ করতে পারি না! আমার আব্বুকে কখনো বলিনি, তুমি আমাদের কতো বড় শক্তি, ছায়া, ভালোবাসা, আরও কতো কি যে, আমরা উপলব্ধি করি, তুমি আছো বলে।’

ভক্ত অনুরাগীদের উদ্দেশে সাইমন লেখেন, ‘কোনোদিন আপনাদেরও বলিনি আমিও বাবা হয়েছি। আমার বড় ধন, আমার জীবন, আমার সন্তান, সাদিক মো: সাইয়্যান (৪ বছর ৪ মাস) আমার বড় ছেলে। ও তার বিদ্যালয় জীবনের প্রথম পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে। একজন বাবা হিসেবে এটাই আমার সেরা মুহুর্ত। আমার টুকটুকের জন্য দোয়া করবেন, যেন মানুষের মতো মানুষ হয়। বাংলাদেশকে যেন অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যায়।’

৮ বছরের ক্যারিয়ার জীবনের দুই বছর পর বিয়ে করেন সাইমন। কিন্তু কাউকে জানাননি। তাই দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমাও চান এই অভিনেতা। লেখেন- ‘আমাকে ক্ষমা করবেন, ওকে এতো দিন পর আপনাদের সামনে আনার জন্য। বাবা তোমারই মতো আমিও বাবা হয়েছি… এখন বুঝি বাবা কতো কষ্ট তোমায় দিয়েছি…….।’

প্রেম আর সংসারজীবন মিলিয়ে চিত্রনায়ক সাইমনের কেটে গেছে ১৫ বছর। বিয়ে করেছেন ৬ বছর আগে। দুই সন্তানের জনক হয়েছেন তিনি। বড় সন্তান স্কুলে যাওয়া শুরু করেছে। ছোট সন্তানের বয়স ৫ মাস।

সাইমনের স্ত্রীর নাম দীপা সাদিক। ঢাকার মেয়ে দীপার সঙ্গে নায়কের সাইমনের ৯ বছরের প্রেম। প্রেমের পর যখন বোনের বাড়িতে ঘরোয়া আয়োজনে বিয়ের কাজটি সেরে নেন।

বিয়ের বিষয়টি গোপন রাখার কারণ প্রসঙ্গে চিত্রনায়ক সাইমন বলেন, ‘আমাদের দেশে সবার ধারণা, বিয়ের খবর ভক্ত ও দর্শকেরা জানতে পারলে জনপ্রিয়তা কমে যাবে। কিন্তু আমার অভিজ্ঞতায় বলতে হচ্ছে, এটা ভুল ধারণা। দর্শক ভালো অভিনয় দেখতে চান। ভালো গল্পের সিনেমা দেখতে পারলে নায়ক–নায়িকা বিবাহিত নাকি অবিবাহিত, তা মোটেও তাদের কাছে ম্যাটার করে না।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *