Header ad

আগেই বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া উচিৎ ছিল

আমাদের চরম একটা ভুল হয়েছে। আগেই বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া উচিৎ ছিল। এটা দেশের নাগরিক হিসেবে বলছি।

করোনাভাইরাস নিয়ে শুক্রবার (২০ মার্চ) বিকেল তিনটায় ঘোষণা দিয়ে ফেসবুক লাইভে আসেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়ক ওমর সানি। লাইভে ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের উদ্দেশে সচেতনতা ও করণীয় বিষয়ে বিভিন্ন কথা বলেন ওমর সানি। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন প্রিয়দর্শিনী অভিনেত্রী মৌসুমী।

ওমর সানি বলেন, আমরা একটা মহামারী গজবের মধ্যে অবস্থান করছি। আমি বাসায় অবস্থান করছি। আমার ছেলে ফারদিন আমাকে বের হতে দিচ্ছে না। এই সময়ের মধ্যেও দেখছি কিছু মানুষ বিয়ের অনুষ্ঠান করছেন। দেখলাম, আমাদের এক তারকা আয়োজন করে বিয়ে সম্পন্ন করলেন।

তিনি বলেন, ইতালির মতো, ইরান, চায়না এখন ধ্বংসলীলার পরিণত হয়েছে। সে তুলনায় আমরা কিছুই না। আমাদের একটু সচেতন হতে হবে। আমি যতটুকু পড়ে জেনেছি, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, বার বার হাত ধোয়া, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা উচিৎ। এই রোগের বাজে দিক হলো এই রোগে যিনি আক্রান্ত হন বুঝতে পারেন।

হযরত মোহাম্মদ (সা:) এর কথা উল্লেখ করে অভিনেতা বলেন, আজ থেকে ১৪ শ বছর আগে নবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) তার সাহাবীদের বলেছিলেন যদি মহামারী আসে তখন কী করার আছে, তোমরা এলাকা থেকে বাইরে যাবা না। ঘরকে আশ্রয়স্থল হিসেবে নেবে। আজ বিজ্ঞানীরা আজ সেই কথা বলছেন।

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি রোধ করতেও প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন অভিনেতা। তিনি বলেন, বাজারে হেক্সিসল কিনতে গিয়ে দেখলাম অনেক দাম বেড়েছে। চার-পাঁচ টাকার মাস্কের দাম বেড়েও অনেক হয়েছে। তবে এখানে আমাদের দায়বদ্ধতা আছে, শুধু যে প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপক্ষ সব করবেন তা নয়।

সরকারী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে অভিনেতা বলেন, রাষ্ট্রপক্ষের কিছু কিছু মানুষ উদ্ভট কথা বলছেন। ভাইরাসকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না। তাদের বলব আপনারা উদ্ভট কথা বলবেন না।

বিদেশফেরত মানুষদের নিয়ে বলেন, বিমানবন্দর থেকে যারা বের হচ্ছেন অনেকেই সচেতন না। দ্রুত তাদের একটা জায়গায় রাখা উচিৎ। আমাদের দেশে যদি মহামারী হয়, কে আমাদের দাফন করবে, আমরা একটু সচেতন হব।

সচেতনতা নিয়ে তিনি আরও বলেন, সরকারের কাছে আবেদন করব, খেটে খাওয়া মানুষদের নিয়ে চিন্তা করতে। মিনিস্টার আপনারা কিন্তু বাঁচবেন না। আপনারা মনে করবেন না নিরাপদে থেকে আপনারা বেঁচে যাবেন। সবার সচেতন হতে হবে। ধর্মীয় ও রাষ্ট্রের জায়গা থেকেও সচেতন হতে হবে।

কাল একটা ভিডিও ফুটেজ দেখলাম, ধানমণ্ডিতে বিকেলের খাবারের জন্য বাচ্চা নিয়ে অনেকেই আনন্দে অনেকে জড়ো হয়েছেন। আমরা কিন্তু অনেক শো বাতিল করেছি। আপনারা নিরাপদে থাকবেন আপনারা নিজ নিজ অবস্থান থেকে দোয়া করবেন।

তবে এই বিপদের মুহূর্তে নামাজকে ভোলেননি অভিনেতা। তিনি বলেন, আজ অনেকেই আমাকে মসজিদে যেয়ে নামাজ পড়তে না করেছিলেন। তারপরেও আমরা মসজিদে যেয়ে নামাজ পড়েছি। আমি মনে করি সর্ব ক্ষমতার অধিকারী আল্লাহ। তিনিই আমায় রক্ষা করবেন।

শিল্পীদের উদ্দেশে ওমর সানি বলেন, আমরা শিল্পীরা যারা আছি, সবাইকে অনুরোধ করব হাত ধোয়া, নিরাপদে থাকার চেষ্টা করব। মানুষদের সচেতন করব। আমার ও মৌসুমির ভক্তদের বলব, এই সচেতনতার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করতে।

অভিনেত্রী মৌসুমী বলেন, দেশের নাগরিক হিসেবে মনে করি আমি যতটুকু জানি ততটুকু সবাইকে জানানো প্রয়োজন। সত্যি বলতে আমরা যারা বই পড়ি, ফেসবুক চালাই তারা কিছুটা হলেও অন্যের মাধ্যমে সচেতন হই। কিন্তু যারা দিন আনে দিন খায় তাদের উপায় নাই। কারণ তাদের কাজ করেই পেট চলে। আমরা তাদের সহযোগিতা করছি না। আমি আমার বুয়াকে ছুটি দিয়েছি। তাকে সচেতন করেছি। আমি মনে করি সে তারা বাচ্চাদের নিয়ে যেখানে থাকুক সচেতনতার সঙ্গে ভালো থাকবে। আশা করি আপনারা আপনাদের জায়গা থেকে মানুষদের সচেতন করবেন সহযোগিতা করবেন।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *