Header ad

‘ভয় পেয়েছি তাই বেঁচে গেছি’

রমেশ সিপ্পির ‘শোলে’-র বিখ্যাত সংলাপ এটি ‘যো ডর গ্যায়া সমঝো ও মর গ্যায়া?’। ১৯৭৫ সালের বলিউডের এই ছবির সংলাপ সামান্য বদলে নিয়েছেন সালমান খান। তিনি বললেন, এই সংলাপ এই দুর্দিনের জন্য নয়। আমরা ভয় পেয়েছি। তাই বেঁচে গেছি!
ভারতে লকডাউনের সময় থেকে তিন সপ্তাহ ধরে পানভেলে নিজের ফার্ম হাউজে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রয়েছেন সালমান। সেখানে মা সালমা খান, বোন অর্পিতা খান, আয়ুশ শর্মা এবং ভাই সোহেল খানের ছেলে নির্বাণকে নিয়ে একসঙ্গে রয়েছেন। অন্যদিকে সালমানের বাবা সেলিম খান একা রয়েছেন মুম্বাইয়ের বাড়িতে।
তাইতো বাবাকে নিয়ে খুব চিন্তায় আছেন এই বলিউড অভিনেতা। টানা তিন সপ্তাহ বাবাকে দেখেননি সালমান।
সালমান জানান, এখানে কয়েকটা দিন থাকতে এসেছিলেন তারা। করোনা পরিস্থিতি দেখে আপাতত এখানেই থাকছেন। তিন সপ্তাহ বাবাকে না দেখে থাকা তার পক্ষে মারাত্মক চাপের। সারাক্ষণ দুশ্চিন্তায় ভুগছেন বাবাকে নিয়ে। কারণ, করোনায় বেশি সাবধানে থাকতে বলা হয়েছে বয়স্কদের। সেখানে সালমানের বাবা বিখ্যাত চিত্রনাট্যকার সেলিম খানের বয়স ৮৫।
লকডাউনে নিজেদের বিপদমুক্ত রাখতেই এই পদক্ষেপ তার। এদিকে ফার্ম হাউজে থেকেই নিজের ফ্যান ক্লাব বিয়িং হিউম্যানের মাধ্যমে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে দৈনিক মজুরিতে কাজ করা ২৫ হাজার দুঃস্থ টেকনিশিয়ানের পরিবারের মুখে অন্ন সংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন সালমান খান।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *