Documentary about Azizul Hakim /আজিজুল হাকিম সম্পর্কিত তথ্যচিত্র

Spread the love

The documentary is about popular actor Azizul Hakim. The documentary titled ‘Babara Bhalo Thakuk’ was made by his daughter Najah Hakim. Hossain Shuvo of Jobay is also with him. In this documentary, Azizul Hakim’s path of artist and personal life has been highlighted. Apart from Azizul Hakim, Mahidul Islam Mahi, actress Golam Farida Chhanda, Sumaiya Saki, Muhaimin Redwan Hakim and others have also taken part in the documentary.

Regarding the event, Azizul Hakim said, “I think the way a child is portraying his father’s life journey on the screen will be an example.” This documentary is dedicated to all the fathers of the world who were martyred in the coronavirus. The story lineup of this documentary is by Jinat Hakim.

He said his father called Najah ‘mother’. Happy after Najah’s marriage. How many memories of the life of the father and the child! Dad’s memory is never gray or dirty. The two of them have been planning for a long time with their father. Often they don’t even want to talk about it anymore. Because Dad is busy. Eventually their dream of having a beloved father came true.

তথ্যচিত্রটি জনপ্রিয় অভিনেতা আজিজুল হাকিম সম্পর্কে। ‘বাবারা ভাল থাকুক’ শিরোনামের ডকুমেন্টারিটি তৈরি করেছিলেন তাঁর মেয়ে নাজাহ হাকিম। জোবায়ের হোসেন শুভও তাঁর সাথে রয়েছেন। এই তথ্যচিত্রে আজিজুল হাকিমের শিল্পী ও ব্যক্তিগত জীবনের পথ তুলে ধরা হয়েছে। আজিজুল হাকিম ছাড়াও মাহিদুল ইসলাম মাহি, অভিনেত্রী গোলাম ফরিদা ছন্দা, সুমাইয়া সাকি, মুহাইমিন রেদওয়ান হাকিম প্রমুখ প্রামাণ্যচিত্রে অংশ নিয়েছেন।

অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে আজিজুল হাকিম বলেছিলেন, “আমি মনে করি যে শিশু একটি পিতার পিতার জীবন যাত্রাকে চিত্রিত করছে তার উদাহরণ হবে।” এই তথ্যচিত্রটি করণোভাইরাস শহীদ হওয়া বিশ্বের সমস্ত পিতাদের জন্য উত্সর্গীকৃত। এই ডকুমেন্টারিটির স্টোরি লাইনআপ হলেন জিনাত হাকিম।

তিনি বলেছিলেন যে তাঁর বাবা নাজাহকে ‘মা’ বলেছিলেন। নাজাহের বিয়ের পরে খুশী। বাবা আর সন্তানের জীবনের কত স্মৃতি! বাবার স্মৃতি কখনও ধূসর বা নোংরা হয় না। তাদের দু’জনই বাবার সাথে দীর্ঘদিন ধরে পরিকল্পনা করে চলেছেন। প্রায়শই তারা এ নিয়ে আর কথা বলতে চায় না। কারণ বাবা ব্যস্ত। শেষ পর্যন্ত তাদের প্রিয় বাবা হওয়ার স্বপ্ন বাস্তব হয়েছিল।