Karina-Alia is restless in trolls / করিনা-আলিয়া ট্রল নিয়ে চঞ্চল

Spread the love

Kareena Kapoor Khan and Alia Bhatt have been trolled continuously for the last ten days. Star Kids are being targeted in the allegation of nepotism. Many stars have already left Twitter. There is no relief from trolls on Instagram. There, the comment box of the stars, the message box is being filled with negative comments. In many cases it is going to the level of blasphemy. That’s why Kareena and Aliara have limited access to their comment box. That means a certain number of messages can come there.

If you want to comment on their post, you will see, Comments on this post have been limited. Having this type of filter will allow anyone to comment on their profile. Stars like Sonam, Karan and Sonakshi have also taken this path to escape from trolling. Ekta Kapoor has also decided to stay away from social media. Despite giving Sushant the first chance, a case has been filed against him. He also filtered the comment box.
However, not all stars have taken this approach. Salman Khan has also been trolled after Sushant’s death.

But he did not limit access. In this case, Salman has asked his fans to exercise restraint without opening their mouths. The accounts of Deepika Padukone, Ranbir Singh, Anushka Sharma, Hrithik Roshan, Shraddha Kapoor are the same as before. Netizens, who are angry over Sushant’s death, are keeping their distance from social media at the moment. On the other hand, the number of fans of Sushant’s account, which is ‘remembering’ from Instagram, is increasing. Sushant’s number of Insta-followers has increased from 12.4 million to 13.6 million.

 

কারিনা কাপুর খান এবং আলিয়া ভট্ট গত দশ দিন ধরে একটানা ট্রলড। নেপোটিজমের অভিযোগে স্টার বাচ্চাদের টার্গেট করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে অনেক তারকা টুইটার ছেড়ে গেছেন। ইনস্টাগ্রামে ট্রলগুলি থেকে কোনও মুক্তি নেই। সেখানে তারকাদের কমেন্ট বক্স, মেসেজ বক্সটি নেতিবাচক মন্তব্যে ভরে যাচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে এটি নিন্দার স্তরে চলে যাচ্ছে। যে কারণে কারিনা এবং আলিয়ারা তাদের মন্তব্য বাক্সে সীমিত অ্যাক্সেস পেয়েছেন। এর অর্থ সেখানে নির্দিষ্ট সংখ্যক বার্তা আসতে পারে।

আপনি যদি তাদের পোস্টে মন্তব্য করতে চান, আপনি দেখতে পাবেন, এই পোস্টে মন্তব্য সীমাবদ্ধ করা হয়েছে। এই ধরণের ফিল্টারটি যে কেউ তাদের প্রোফাইলে মন্তব্য করার অনুমতি দেবে। সোনম, করণ ও সোনাক্ষীর মতো তারকারাও ট্রলিং থেকে বাঁচতে এই পথ অবলম্বন করেছেন। একতা কাপুরও সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সুশান্তকে প্রথম সুযোগ দেওয়ার পরেও তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তিনি মন্তব্য বাক্সটি ফিল্টারও করেছিলেন।
তবে, সমস্ত তারকারা এই পদ্ধতিকে গ্রহণ করেন নি। সালমান খানও সুশান্তের মৃত্যুর পরে ট্রলড হয়েছেন।

কিন্তু তিনি অ্যাক্সেস সীমাবদ্ধ করেন নি। এক্ষেত্রে সালমান তাঁর অনুরাগীদের মুখ না খোলে সংযম প্রয়োগ করতে বলেছেন। দীপিকা পাডুকোন, রণবীর সিং, আনুশকা শর্মা, হৃতিক রোশন, শ্রদ্ধা কাপুরের খাতা আগের মতোই। সুশান্তের মৃত্যুর জন্য ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা এই মুহুর্তে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তাদের দূরত্ব বজায় রাখছেন। অন্যদিকে, সুশান্তের অ্যাকাউন্টে ভক্তদের সংখ্যা, যা ইনস্টাগ্রাম থেকে ‘স্মরণ’ করছে, তা বাড়ছে। সুশান্তের ইন্সটা-ফলোয়ারের সংখ্যা ১২.৪  মিলিয়ন থেকে বেড়ে ১৩.৬ মিলিয়ন হয়েছে ।